Tag Archives: ধনিয়া

উচ্চ রক্ত চাপ প্রশমনে ধনিয়া

ধনিয়া পাতা ভর্তা করে ২-৩ ঘণ্টা পর পর সেবন করলে উচ্চ রক্তচাপ কমে যায়। সেবনবিধিঃ পাতাঃ ১ কাপ । সতর্কতা নির্দিষ্ট মাত্রার অধিক সেবন করা উচিৎ নয়, এতে ঠাণ্ডা লেগে যেতে পারে। Advertisements

Posted in উচ্চ রক্তচাপ | Tagged , | মন্তব্য দিন

চুল পড়া ও খুশকি রোধে ধনিয়া

ধনিয়া নিয়ে থেঁতো করে ২০ গ্রাম খাঁটি তিল তেলে ৭/৮ দিন ভিজিয়ে রেখে ছেঁকে সেই তেল মাথায় নিয়মিত ব্যবহারে চুল পড়া বন্ধ হয় ও খুশকি দূর হয়। সেবনবিধিঃ ধনিয়াঃ ৭-৮ চা চামচ । সতর্কতা নির্দিষ্ট মাত্রার অধিক সেবন করা উচিৎ … বিস্তারিত পড়ুন

Posted in খুশকি, চুল পড়া | Tagged , , | মন্তব্য দিন

মুখের দুর্গন্ধ দূরীকরণে ধনিয়া

শুষ্ক বীজকে আধা চূর্ণ করে ১ কাপ পরিমাণ পানিতে ভিজিয়ে জ্বাল করে আধা কাপ হলে নামিয়ে ছেঁকে ১৫-২০ দিন রাতে সেবন করলে মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়ে যাবে। সেবনবিধিঃ শুষ্ক বীজ চূর্ণঃ ১০ গ্রাম । সতর্কতা নির্দিষ্ট মাত্রার অধিক সেবন করা … বিস্তারিত পড়ুন

Posted in মুখের দুর্গন্ধ | Tagged , | 4 টি মন্তব্য

পাকস্থলীর দুর্বলতায় ধনিয়া

শুষ্ক বীজ চূর্ণ আধা কাপ জৈনের নির্যাস বা পুদিনার নির্যাসের সাথে দিনে ২-৩ বার সেবন করতে হয়। ১৫-২০ দিন পর্যন্ত নিয়মিত সেবন করতে হবে। সেবনবিধিঃ শুষ্ক বীজ চূর্ণঃ ৭-১০ গ্রাম । সতর্কতা নির্দিষ্ট মাত্রার অধিক সেবন করা উচিৎ নয়, এতে … বিস্তারিত পড়ুন

Posted in পাকস্থলীর দুর্বলতা | Tagged , | মন্তব্য দিন

অজীর্ণ, পেটফাঁপার চিকিৎসায় ধনিয়া

শুষ্ক বীজ চূর্ণ আধা কাপ জৈনের নির্যাস বা পুদিনার নির্যাসের সাথে দিনে ২-৩ বার সেবন করতে হয়। ১৫-২০ দিন পর্যন্ত নিয়মিত সেবন করতে হবে। সেবনবিধিঃ শুষ্ক বীজ চূর্ণঃ ৭-১০ গ্রাম । সতর্কতা নির্দিষ্ট মাত্রার অধিক সেবন করা উচিৎ নয়, এতে … বিস্তারিত পড়ুন

Posted in পেটফাঁপা | Tagged , | মন্তব্য দিন

পিপাসা ও শরীরের জ্বালাপোড়া দূরীকরণে ধনিয়া

শুষ্ক বীজ চূর্ণ করে আধাকাপ গোলাপের নির্যাসের সাথে মিশিয়ে দিনে ২-৩ বার সেবন করতে হবে। ২০-৩০ দিন পর্যন্ত নিয়মিত সেবন করলে পিপাসা ও শরীরের জ্বালাপোড়া দূর হয়ে যাবে। সেবনবিধিঃ শুষ্ক বীজ চূর্ণঃ ৫-১০ গ্রাম । সতর্কতা নির্দিষ্ট মাত্রার অধিক সেবন … বিস্তারিত পড়ুন

Posted in শরীরের জ্বালাপোড়া | Tagged , | মন্তব্য দিন