Category Archives: পাকস্থলীর দুর্বলতা

পাকস্থলীর দুর্বলতায় ধনিয়া

শুষ্ক বীজ চূর্ণ আধা কাপ জৈনের নির্যাস বা পুদিনার নির্যাসের সাথে দিনে ২-৩ বার সেবন করতে হয়। ১৫-২০ দিন পর্যন্ত নিয়মিত সেবন করতে হবে। সেবনবিধিঃ শুষ্ক বীজ চূর্ণঃ ৭-১০ গ্রাম । সতর্কতা নির্দিষ্ট মাত্রার অধিক সেবন করা উচিৎ নয়, এতে … বিস্তারিত পড়ুন

Posted in পাকস্থলীর দুর্বলতা | Tagged , | মন্তব্য দিন

পাকস্থলীর দূর্বলতায় ডালিমের রসের উপকারীতা

পাকস্থলীর দূর্বলতায় ডালিম ফলের রসের সাথে গোলাপের নির্যাস মিশিয়ে প্রতিদিন ২-৩ বার সেবন করতে হবে।১৫-২০ দিন নিয়মিত সেবন করতে হবে। সেবন বিধিঃ ফলের রসঃ ৫-১০ চা চামচ। সর্তকতাঃ তেমন কোন সর্তকতার প্রয়োজন নেই।

Posted in পাকস্থলীর দুর্বলতা | Tagged , | মন্তব্য দিন

পাকস্থলীর চিকিৎসায় আনারস

পাকস্থলীর দূর্বলতায় ফলের রস দিনে ২-৩ বার সেবন করতে হবে। নিয়মিত ১৫-২০ দিন সেবন করলে দূ্র্বলতা উপশম হবে। সেবন বিধিঃ ফলের রসঃ ১০-২০ চা চামচ । সর্তকতাঃ নির্দিষ্ট মাত্রার অধিক ও গর্ভকালীন সময়ে আনারস খাওয়া উচিৎ না,আনারস খেয়ে সাথে সাথে … বিস্তারিত পড়ুন

Posted in পাকস্থলীর দুর্বলতা | Tagged , | মন্তব্য দিন

পাকস্থলীর দূর্বলতা হ্রাসে বহেড়া

বহেড়া খোসাচূর্ণ আহারের পর দিনে ২ বার পানিসহ সেবন করলে পাকস্থলীর দূর্বলতা হ্রাস পায় । সেবন বিধিঃ বহেড়া খোসাচূর্ণঃ ৫– ৬ গ্রাম । সর্তকতাঃ নির্দিস্ট মাত্রায় সেবনে কোনরূপ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী সেবন করুন ।

Posted in পাকস্থলীর দুর্বলতা | Tagged , | মন্তব্য দিন

পাকস্থলীর দুর্বলতায় বেলের ভূমিকা

পাকস্থলীর দুর্বলতায় ৩০-৩৫ গ্রাম পাকা বেলের শাঁস প্রতিবারে ১ গ্লাস পানিতে শরবত তৈরী করে দিনে ২ বার সেবন করতে হবে । সেবনবিধিঃ বেলের শাঁসঃ ৩০-৩৫ গ্রাম। সতর্কতাঃ তেমন কোন সতর্কতার প্রয়োজন নেই।

Posted in পাকস্থলীর দুর্বলতা | Tagged , | মন্তব্য দিন